'মুসলিম' কলোনির নাম শুনে মাঝপথেই যাত্রীকে নামাল ওলা!

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লির জামিয়া নগরের নাম শুনে তেলেবেগুনে জ্বলে উঠলেন ওলা চালক। যাত্রীকে স্পষ্ট জানিয়ে দেন, 'মুসলিম' কলোনিতে তিনি যেতে পারবেন না। তার পরেও নাছোড় ওই যাত্রী শেষ পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যান। জেদ ধরেই বসেছিলেন ক্যাবে। ওলা যখন বুক করেছেন, গন্তব্যে গিয়েই নামবেন। কিন্তু, চালকের সঙ্গে পেরে ওঠেননি। মাঝপথেই তাঁকে নেমে যেতে হয়। রবিবারের ওই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পর, ওলা কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত ভাবে অভিযোগ জানান ওই যাত্রী। তাঁর অভিযোগ, ক্যাব থেকে তিনি নামতে অস্বীকার করলে, ওই চালক ফোনে তাঁর এক বন্ধুকে ডাকেন। অশান্তি এড়াতে বাধ্য হয়েই তিনি মাঝপথে নেমে যান।এই ঘটনায় দুঃখ প্র

গলছে বরফ, কেজরির সঙ্গে আলোচনায় রাজি বিক্ষুব্ধ আমলারা

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লিতে চলতি প্রশাসনিক অচলাবস্থা কাটার ইঙ্গিত। মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে আলোচনায় বসতে রাজি হলেন রাজ্যের বিক্ষুব্ধ আইএএস অফিসাররা। নিরাপত্তার দাবিতে গত ফেব্রুয়ারি থেকে দিল্লির আপ সরকারকে 'বয়কট' করছেন দিল্লির আইএএস অফিসাররা।পরিস্থিতি ফের স্বাভাবিক করতে আমলাদের আন্দোলন প্রত্যাহারের অনুরোধ করেছেন কেজরিওয়াল। একইসঙ্গে তাঁদের পূর্ণ নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। অরবিন্দ কেজরিওয়ালের এই প্রস্তাবের জবাবে আইএএস সংগঠনের তরফে টুইটারে বলা হয়েছে, 'দিল্লি সরকারের আধিকারিকরা মুখ্যমন্ত্রীর এই আবেদনকে স্বাগত জানাচ্ছে। আমরা পূর্ণ নিষ্ঠা ও দ্র

'সরকারের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলা উচিত নয়'

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: সুপ্রিম কোর্টের পরবর্তী বিচারপতি নিয়োগের ক্ষেত্রে সরকারের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলা উচিত নয়। সোমবার এমনই মন্তব্য করলেন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। তিনি জানান, প্রথা অনুসারে বর্তমান প্রধান বিচারপতি তাঁর উত্তরসূরিকে বেছে নেওয়ার পরেই সরকার এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।আগামী ২ অক্টোবর দেশের বর্তমান প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের কার্যকালের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। বিচারপতি মিশ্রের পরে এই মুহূর্তে শীর্ষ আদালতের প্রবীণতম বিচারপতি হলেন রঞ্জন গগৈ। ফলে প্রথা অনুসারে তাঁরই পরবর্তী প্রধান বিচারপতি হওয়ার কথা। কিন্তু মোদী সরকার প্রথা মেনে বিচারপতি গগৈকে প্রধান বিচারপতি ক

তিহার জেলে যোগ শিবির বাবা রামদেবের

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: আগামী ২১ জুন বিশ্ব যোগ দিবস। তার আগে রবিবার ১৭ জুন তিহার জেলে আয়োজিত হল এক যোগ শিবির। শিবিরের পৌরোহিত্য করেন যোগ গুরু বাবা রামদেব। রবিবার এই যোগ শিবিরে অংশ নিয়েছিলেন প্রায় ১১ হাজার জেলবন্দি। এক আধিকারিক জানিয়েছেন, বাবা রামদেব এদের মধ্যে কয়েকজনকে চাকরির প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন। তিহার সহ ৯টি জেলের বন্দিরা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল। রামদেব নিজে উপস্থিত থেকে এদের যোগাসন শেখান। গুরুদক্ষিণা হিসেবে এদের থেকে রাগ ও হিংসা পরিত্যাগ করার প্রতিশ্রুতি চেয়ে নেন তিনি। অনুরোধ করেন যাতে মদ্যপান ও ধূমপান ত্যাগ করে তারা। তিহার জেলের ভিতরে প্রায় ৪ ঘন্টা ছিলেন রামদেব। ঘুরে দে